৫৭ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ: ক্যাসিনো সেলিমের বিচার শুরু

৫৭ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় ক্যাসিনোকাণ্ডের অন্যতম হোতা সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর মধ্য দিয়ে এ মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার কাজ শুরু হলো।

রোববার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক আসাদ মো. আসিফুজ্জামানের আদালত আসামি সেলিমের অব্যাহতির আবেদন খারিজ করে অভিযোগ গঠন করেন।

এদিন আসামি সেলিমকে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর আদালত সেলিমের উপস্থিতিতে অভিযোগ গঠনের আদেশের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন। একই সঙ্গে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২৫ নভেম্বর দিন ধার্য করেন।

এর আগে ১৭ অক্টোবর অভিযোগ গঠন শুনানির দিন আইনজীবী শাহিনুর রহমান আসামি সেলিমকে নির্দোষ দাবি করে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন। অন্যদিকে দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল অভিযোগ গঠনের পক্ষে শুনানি করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আদেশের জন্য ৩১ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।

২০১৯ সালের ২৭ অক্টোবর দুদক উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ মামলায় তার বিরুদ্ধে প্রাথমিকভাবে ১২ কোটি ২৭ লাখ ৯৫ হাজার ৭৫৪ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ করা হয়েছিল। এ উপ-পরিচালকই মামলাটি তদন্ত করে শেষ পর্যন্ত তার নামে মোট ৫৭ কোটির বেশি টাকার অবৈধ সম্পদের প্রমাণ পেয়েছেন।

এর আগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান চলাকালে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হন অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী ও জাপান-বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড প্রিন্টিং পেপার্সের মালিক সেলিম প্রধান।

জানা যায়, দুর্নীতির মাধ্যমে ও ক্যাসিনো খেলে সেলিম প্রধান মোট ৫৭ কোটি ৪১ লাখ ৪৮ হাজার টাকার সম্পদ অর্জন করেছেন। এর মধ্যে স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ ৩৫ কোটি ৪১ লাখ ৯৭ হাজার টাকার। ক্যাসিনো খেলে অর্জিত ২১ কোটি ৯৯ লাখ টাকা পাচার করেছেন থাইল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্রে।

দুদকের তদন্তে দেখা যায়, সেলিম প্রধান ২১ কোটি ৯৯ লাখ ৫১ হাজার টাকা দেশের অভ্যন্তরে অবৈধভাবে অর্জন করে পাচার করেছেন। তদন্তে তার বিরুদ্ধে সর্বমোট ৫৭ কোটি ৪১ লাখ ৪৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ পাওয়া গেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.