৪০ বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যায় মহারাষ্ট্রে ১১২ জনের মৃত্যু

ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যে ৪০ বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যা এবং ভূমিধসে অন্তত ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভারী ‍বৃষ্টিপাতের পর বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনায় এই বিপুল সংখ্যক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। খবর বিবিসির।

প্রচণ্ড বৃষ্টিতে শত শত গ্রাম ডুবে গেছে। ভেসে গেছে বহু ঘরবাড়ি। পানি বন্দি হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। উদ্ধারকারীরা মানুষজনকে অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। তবে অনেকেই নিখোঁজ রয়েছে।

উদ্ধারকাজে সহায়তা করছে ভারতীয় সেনাবাহিনীও। তবে প্রতিকূল পরিবেশের কারণে উদ্ধারকাজ ব্যাহত হচ্ছে। ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় এই রাজ্যটিতে গত চার দশকের মধ্যে জুলাই মাসে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে।

ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে ব্যাপক বন্যা হলেও বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর পেছনে বৈশ্বিক উষ্ণায়নেরও একটি ভূমিকা আছে। তাদের ভাষায়, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই এই বিপুল পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে।

শুক্রবার ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রাজ্যের দুটি জেলায় মূলত এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। তারা বলছেন, ভূমিধস এবং বন্যার কারণে এই ব্যক্তিদের মৃত্যু হয়েছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাইয়ের দক্ষিণ-পূর্বে একটি ছোট গ্রাম ভয়াবহ ভূমিধসে রীতিমতো মাটির সঙ্গে মিশে যায়। এ ঘটনায় অন্তত ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে জরুরি বৈঠক ডেকে ক্ষতিগ্রস্তদের দ্রুত ত্রাণ সহায়তা দিতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি জানান, তারা ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে মানুষজনকে সরিয়ে নিচ্ছেন।

এদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘প্রাণহানির ঘটনায় খুবই কষ্ট’ পেয়েছেন তিনি। ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা দেয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.