১ নভেম্বর থেকে বুয়েটের হল খোলার দাবি শিক্ষার্থীদের

দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো আবাসিক হল খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধনে ক্লাস শুরুর আগে আগামী ১ নভেম্বর থেকে অন্তত এক ডোজ টিকা গ্রহণকারীদের ধাপে ধাপে আবাসিক হলে শিক্ষার্থীদের তোলার দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধন শেষে সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য হল খুলে দিতে ছাত্রকল্যাণ পরিচালক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে শিক্ষার্থীরা।

শনিবার সকাল ১১টায় বুয়েট শহীদ মিনারে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেন। সেখানে তারা হল খোলার পক্ষে শিক্ষার্থীদের থেকে স্বাক্ষর গ্রহণ করেন। দুই হাজারের অধিক শিক্ষার্থীদের স্বাক্ষর সম্বলিত একটি স্মারকলিপি ছাত্রকল্যাণ পরিচালক মিজানুর রহমানের কাছে প্রদান করেন।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা জানান, বর্তমানে বুয়েটের ৮০ শতাংশের বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থী দুই ডোজ ভ্যাক্সিন গ্রহণ করেছে। শিক্ষার্থীদের মতে এই সংখ্যাটি আরো বড়, কেন না নানাবিধ সমস্যার কারণে অনেক শিক্ষার্থীই এখন পর্যন্ত বিআইআইএস’র মাধ্যমে নিজের ভ্যাক্সিনেশনের অবস্থা জানাতে পারেনি। অর্থাৎ, বুয়েটের প্রায় সকল শিক্ষার্থীই এখন অন্তত এক ডোজ ভ্যাক্সিন প্রাপ্ত। যেহেতু আগামী ১৩ নভেম্বর থেকে ক্লাস শুরু হবে। আবাসিক হল না খুলে ক্লাস শুরু করলে গত সেমিস্টারের মতোই অনেক শিক্ষার্থী ক্লাস করতে অপারগ হবে। তাই যতদ্রুত সম্ভব হল খুলে ক্লাস নেয়া হোক।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, আমরা স্মারকলিপি দিয়েছি, আশা করি প্রশাসন আমাদের দাবি মেনে নিবে। আমরা সহজ পন্থায় চেষ্টা করছি, কিন্তু আমাদের দাবি না মানা হলে কঠোর আন্দোলনেও যাবো।

আন্দোলনের সময় শিক্ষার্থীদের হাতে ‘অনলাইনে ইঞ্জিনিয়ার হতে চাই না’, ‘আমাদের হল খুলে দাও’, ‘সারাদেশে অফলাইন বুয়েট কেন অনলাইন’, ‘অনলাইনে বন্দী থাকবো না’সহ বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্লেকার্ড দেখা যায়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.