১৪ বছর ধরে বৃদ্ধ মায়ের কোনো খোঁজই নেন না চিত্রনায়িকা পপি

চিত্রনায়িকা পপির মা মরিয়ম বেগমের দিন কাটছে অসহায়ত্বে। কারণ নিজের তারকা মেয়ে ভরণ-পোষণের দায়িত্ব পালন করেন না। তা তো দূরে থাক, কোনো খোঁজই নেন না।

সম্প্রতি একটি ভিডিও বার্তায় এমনই অভিযোগ করেছেন তার মা মরিয়ম বেগম।

ভিডিওতে পপির মা বলেন, সে আমার সাথে থাকে না, আমিও  থাকি না। পপি কোথায় থাকে আমি জানি না। আমি কোথায় থাকি পপি জানে না। পপি বলে, আমাকে সে ভরণপোষণ দেয়। সব মিথ্যা। তার বাসায়ও আমি থাকি না।

১৪ বছর ধরে তার মেয়ে পপির কোনো খোঁজখবর জানেন না মরিয়ম বেগম। তিনি বলেন, ‘২০০৭ সালের পর থেকে পপি আমার সঙ্গে থাকে না। আমি কোথায় আছি, সেটাও জানে না।’

পপির মায়ের এই বক্তব্যের মধ্যে কিছুটা গড়মিল লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কেননা ২০১৯ সালে পপির সুবাদে ‘গরবিনী মা সম্মাননা’ লাভ করেন মরিয়ম বেগম। সে সময় একসঙ্গে তাদের অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল।

দীর্ঘদিন ধরে শুটিংয়ে নেই চিত্রনায়িকা পপি। পরিচিত জনদের সঙ্গেও খুব একটা দেখা সাক্ষাৎ নেই তার।  শোনা যাচ্ছে, বাবা-মায়ের বাসায়ও থাকছেন না ঢালিউড নায়িকা। তাহলে পপি থাকেন কোথায়? ঘনিষ্ঠজনরা বলছেন, পপি বিয়ে করেছেন, থাকেন স্বামীর সঙ্গে। তিনি সন্তানসম্ভবা।

এ বিষয়ে জানতে পপির ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

সবশেষ গত বছরের ডিসেম্বরের ২৩ তারিখ ফেসবুকে পোস্ট করেছেন পপি। এরপর থেকেই অনেকটাই উধাও পপি। ‘ভালোবাসার প্রজাপ্রতি’ ছবির শুটিং অর্ধেক করেই লাপাত্তা হয়ে যান পপি। এ ছবি ছাড়াও আরও একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার কথাও ডিসেম্বরেই জানিয়েছিলেন এ নায়িকা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.