১২-ঊর্ধ্ব বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন সোমবার

আগামীকাল সোমবার (১ নভেম্বর) থেকে দেশে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া শুরু হচ্ছে। প্রথমদিন সকালে রাজধানীর মতিঝিলের আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে এই টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন উপলক্ষ্যে সাজানো হচ্ছে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ২০টি কক্ষ। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটিকেও পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। রবিবার (৩১ অক্টোবর) বিকালের মধ্যে প্রস্তুতি সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জানানো হয়, প্রথম দিন উদ্বোধনের পরদিন থেকে রাজধানীর অন্য কেন্দ্রগুলোতেও শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরু হবে। প্রতিদিন একটি কক্ষে ২০০ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। মতিঝিল ও রমনা এলাকার শিক্ষার্থীরা এই টিকা কেন্দ্রে টিকা নেবে।

এদিকে আজ রবিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, শিশুদের টিকা দেওয়ার জন্য প্রথমে ১২টি কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছিল। তবে পর্যাপ্ত সুবিধা না থাকায় চারটি বাতিল করা হয়েছে। ফলে আগামীকাল থেকে ৮টি কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেওয়া হবে। এই কেন্দ্রগুলো হলো— হার্ডকো ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, সাউথপয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ, চিটাগং গ্রামার স্কুল, মতিঝিলের আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুর কমার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কাকলী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সাউথ ব্রিজ স্কুল এবং মিরপুরের স্কলাস্টিকা স্কুল।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক সাংবাদিকদের জানান, শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি প্রায় শেষ দিকে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে শিক্ষার্থীদের তালিকা পাওয়ার পর আইসিটি মন্ত্রণালয়কে নিবন্ধনের জন্য দেওয়া হয়েছে। সুরক্ষা অ্যাপ্লিকেশনে নিবন্ধন করে দেওয়া হয়েছে। নিবন্ধনের বাকিটা স্কুল থেকে করা হবে। ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য অধিদফতর প্রতি দিন ৪০ হাজার শিশুকে টিকা দিতে পারবে।’

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, ফাইজারের এই টিকা সংরক্ষণ করতে হয় হিমাঙ্কের নিচে মাইনাস ৯০ ডিগ্রি থেকে মাইনাস ৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। ফলে এই টিকা সংরক্ষণে আল্ট্রা কোল্ড ফ্রিজারের প্রয়োজন হয়। আর পরিবহনের জন্য প্রয়োজন হয় থার্মাল শিপিং কনটেইনার বা আল্ট্রা ফ্রিজার ভ্যান। ফলে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসি রুম রয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে। যাচাই-বাছাই করে রাজধানীতে ৮ থেকে ১২টি কেন্দ্র নির্ধারণ করে টিকা দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ঢাকায় স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের টিকা দেওয়ার জন্য কয়েকটি কেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়েছে। পরে প্রতিটি জেলায় শিশুদের টিকা দেওয়া হবে। সেজন্য যেখানে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষ নেই, সেখানে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষ প্রস্তুত করতে বলা হয়েছে।

এর আগে গত ১৪ অক্টোবর মানিকগঞ্জের কয়েকটি স্কুলের ১২০ জন শিক্ষার্থীকে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইজারের টিকার প্রথম ডোজও দেওয়া হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.