স্বাস্থ্যবিধি না মানলে হাট বন্ধ করে দেওয়া হবে: ডিএনসিসি মেয়র

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ডিএনসিসি এলাকায় নয়টি হাটের জন্য তিনটি ভ্রাম্যমাণ আদালত রয়েছে। কোনো হাট স্বাস্থ্যবিধি না মানলে বন্ধ করে দেওয়া হবে।

রোববার রাজধানীর ভাটারার সাইদ নগর হাট পরিদর্শনে এসে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় ডিএনসিসি মেয়র কোরবানির পশুর হাটে আগতদের ‘সবার ঢাকা’ অ্যাপের মাধ্যমে অভিযোগ জানানোর জন্য আহ্বান করেন। তিনি বলেন, এ বিষয়ে যে কেউ অভিযোগ জানালে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মেয়র আতিক বলেন, প্রতিটি হাটে পাঁচ জন করে কাউন্সিলর দায়িত্বে আছেন। স্বাস্থ্যবিধি মানতে না দেখলে তাদের বলুন। তাদের বিরুদ্ধেও কোনো অভিযোগ থাকলে আমাদের অ্যাপে জানান। এবার আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে খুব কঠোর।

তিনি আরো বলেন, এবারই প্রথম আমরা নয়টি হাটে করোনা টেস্ট করানোর ব্যবস্থা রেখেছি। এছাড়াও প্রতিটি হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য শক্তি ফাউন্ডেশন এবং হাট ইজারাদারদের পক্ষ থেকে ২০০ জন করে স্বেচ্ছাসেবক থাকছে। ‘মাস্ক আমার সুরক্ষা সবার’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে সবাইকে মাস্ক পরতে সচেতন করা হচ্ছে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, আমাদের ৫৪টি ওয়ার্ডের প্রতিটিতে ৫টি স্থান অর্থাৎ ২৭০টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। সবাই যেন সেসব নির্ধারিত স্থানে কোরবানি করেন সে বিষয়ে অনুরোধ জানাচ্ছি।

এ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজাসহ ডিএনসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং স্থানীয় কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.