সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে মারুফ

‘আচ্ছা, যে লকডাউন দিয়েছে, সামনে ঈদ, মানুষে খাবে কী? মাননীয় মন্ত্রী যে একটা লকডাউন দিয়েছে সেটা ভুয়া, থ্যাংকইউ।’ সাংবাদিকের লাইভের মাঝে ঢুকে পড়ে লকডাউন নিয়ে প্রশ্ন তোলা পথশিশু মারুফের জায়গা হচ্ছে সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে। শনিবার (২৪ এপ্রিল) কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন, ১০-১১ বছর বয়সী এই পথ শিশুকে পুলিশ উদ্ধার করে আদালতের আদেশের ভিত্তিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, আজ (শনিবার) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জজকোর্ট এলাকার বাংলাদেশ ব্যাংক ভবনের সামনে থেকে মারুফকে উদ্ধার করে কোতোয়ালি থানা-পুলিশ। এরপর আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাকে সমাজসেবা অধিদপ্তরের মিরপুরের আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। সাংবাদিকদের লাইভে এসে লকডাউন নিয়ে প্রশ্ন তোলা শিশু মারুফ বাবা-মার সঙ্গে থাকে না। রাজধানীর কোটকাচারি, জগন্নাথ কলেজ, ভিক্টোরিয়া পার্ক, সদরঘাটসহ পুরানঢাকার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বেড়ানোই তার কাজ।

করোনার উচ্চ সংক্রমণ রোধে সরকারের জারি করা চলমান সর্বাত্মক লকডাউনে পুরান ঢাকার চিত্র তুলে ধরতে গত সোমবার লাইভে হাজির হন এক অনলাইন গণমাধ্যমের সাংবাদিক। ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত এলাকা থেকে ফেসবুকে লাইভ করেন পলাশ মল্লিক নামের ওই সাংবাদিক। লাইভ চলাকালে পথশিশু মারুফ ক্যামেরার সামনে এসে ঈদকে সমনে রেখে দেওয়া লকডাউন নিয়ে প্রশ্ন তোলে।

আরও পড়ুন
Loading...