শেবাচিমে আরো ১০ মৃত্যু, রেকর্ড সংখ্যক রোগী চিকিৎসাধীন

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৩১ জুলাই) সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন রেকর্ড সংখ্যক ৩৪০ জন রোগী।

এদিকে, মেডিক্যাল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার আবারও কিছুটা বেড়ে ৫৬.৭০ ভাগ উঠেছে।

হাসপাতালের পরিচালক কার্যালয় থেকে জানা যায়, শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত বিগত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে করোনা ওয়ার্ড ত্যাগ করেছেন ২১ জন রোগী। একই সময়ে নানা উপসর্গ নিয়ে ৪৮ জন রোগী করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছেন। এদের মধ্যে ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত। সকাল ৮টা পর্যন্ত বিগত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ৪ জনের করোনা পজেটিভ।

সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন সর্বাধিক ৩৪০ জন রোগী। এর মধ্যে ১৪৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। অন্যদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

গত বছরের ১৭ মার্চ শেবাচিমে করোনা ওয়ার্ড চালুর পর শনিবার রেকর্ড সংখ্যক ৩৪০ জন রোগী চিকিৎসাধীন আছেন।

বিগত ২৪ ঘণ্টায় ১০ জনসহ গত বছরের মার্চ মাস থেকে এ পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ হাজার ৭৭ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৩০১ জন ছিলেন করোনায় আক্রান্ত।

এদিকে মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্তের হার একদিনের ব্যবধানে আবারও ১৪ ভাগ বেড়েছে। গত শুক্রবার রাতে প্রকাশিত সব শেষ রিপোর্টে ২০১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৫৬.৭০ ভাগ। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে প্রকাশিত রিপোর্টে শনাক্তের হার ছিলো ৪২.৭০ ভাগ।

গত বছরের ৮ এপ্রিল বরিশালে পিসিআর ল্যাব চালুর পর গত ৫ জুলাই সর্বাধিক ৭৩.৯৪ ভাগ করোনা শনাক্ত হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.