শিবির ও ফ্রিডম পার্টির নেতা বাচ্চুকে নৌকা না দেয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলন

নলছিটির কুলকাঠি ইউনিয়নের চিহ্নিত দূর্নীবাজ, ১৯৯২ সালে পৌর ছাত্র শিবিরের সভাপতি ও ১৯৯৩ সালে ফ্রিডম পার্টির সভাপতির নব্য আ’লীগ লেবাসধারী আক্তারুজ্জামান বাচ্চুকে ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী না করার আহবান জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে তৃনমূল পর্যায়ের আ’লীগ ও অংগসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। কুলকাঠি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা লীগ কৃষক লীগসহ র্দুদিনের ত্যাগী, পরীক্ষিত ও নির্যাতিত নেতাকর্মীরা বৃহস্পতিবার ঝালকাঠি টেলিভিশন সাংবাদিক সমিতিতে এক জানাকীর্ন সংবাদ সম্মেলনে এ আবেদন জানান।

সংবাদ সম্মেলনে কুলকাঠি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ সামসুল আলম, ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি নির্মল ঘোষ, ইউনিয়নের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোঃ আলমগীর মেম্বার, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শহীদুর রহমান বাচ্চু,উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি কাওসার হোসেন মিন্টু মৃধা, ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী সরওয়ার হোসেন, মাহাবুবুর রহমান কামরুল, ইউনিয়ন যুবলীগ যুগ্মআহবায়ক অলিউল ইসলাম প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলন শেষে কয়েকশতাধিক নেতা-কর্মী নব্য আ’লীগ লোবসধারী শিবির-ফ্রিডমপার্টির নেতা আক্তারুজ্জামান বাচ্চুর বিরুদ্ধে এক বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সম্মুখে জেলা সভাপতি-সাধারন সম্পাদকসহ নেতাদের কাছে তাদের দাবী তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্যে কুলকাঠি ইউনিয়ন আ’লীগ নেতৃবৃন্ধ বলেন, এক সময় নলছিটির কুখ্যাত এরশাদ শিকদারের সহযোগী হিসেবে আক্তারুজ্জামান বাচ্চু খুলনায় নানা অপকর্ম করে সেখানের জামাত নেতা জাকারিয়ার মাধ্যমে ছাত্র শিবিরের ক্যাডার হিসেবে কাজ করেন। ২০০৪ সালে দেশে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হলে সুচতুর বাচ্চু কৌশলে আওয়ামীলীগে যোগদান করে জেলার নেতাদের ভূল বুঝিয়ে কুলকাঠি ইউনিয়নে দলের সমর্থিত প্রার্থী হয়ে চেয়ারম্যানের ক্ষমতায় আরোহন করেন। চেয়ারম্যান হয়ে সে একদিকে ইউনিয়ন আ’লীগের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের মামলা-হামলা, হয়রানী-নির্যাতনসহ নানা কৌশলে কোনঠাসা করেন। অপরদিকে তার অনুগত বিভিন্ন দলে দুস্কৃতিকারীদের ইউনিয়ন-ওয়ার্ড পর্যায়ে আ’লীগসহ অংগসংগঠনের সভাপতি-সেক্রেটারীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন পদে ডুকিয়ে তার রাজনীতি বানিজ্য পাকাপোক্ত করেন।

১৯৯৫ সালে নলছিটি পুরান বাজারে কর্ণেল ফারুক-রশিদ আসলে তৎকালিন ফ্রিডম পার্টির সভাপতি আক্তারুজ্জামান বাচ্চু’র নেতৃত্বে ২টি ষ্টেন গানসহ তাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন যা এখনও তার নিকট রয়েছে। সরকার ও প্রশাসনের নিকট উক্ত অবৈধ ষ্টেন গান ২টি উদ্ধার সহ আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আক্তারুজ্জামান বাচ্চুকে দলীয় নৌকা প্রতীক না দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও ঝালকাঠি-২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমির হোসেন আমুর নিকট আকুল আবেদন জানান। গত নভেম্বর মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রকাশিত অনুপ্রবেশকারীর তালিকায় বরিশাল বিভাগে ৫৯৫ জনের মধ্যে ঝালকাঠি জেলায় ১৫ জনের তালিকায় ৬নাম্বারে আক্তারুজ্জামান বাচ্চ’রু নাম প্রকাশিত হলে তা নিয়ে ০৩ নভেম্বর-২০১৯ ইত্তেফাক, সমকালসহ সকল জাতীয় পত্রিকায় ফলাও করে সংবাদ প্রকাশিত হয় বলে তারা জানান।

এ ব্যাপারে নলছিটি আওয়ামীলীগের সাগঠনিক সম্পাদক, কুলকাঠি ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান বাচ্চু তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান। যারা অভিযোগ তুলছে তারা সকলেই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার প্রতিদন্দী, তাই মিথ্যা রটনা চালাচ্ছে।

সুত্র: ফেইসবুক থেকে সংগ্রিহীত

আরও পড়ুন
Loading...