শিগগিরই স্টার্ট-আপ পলিসি তৈরি হচ্ছে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

শিগগিরই স্টার্ট-আপ পলিসি তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

শনিবার রাজধানীর আগারগাওয়ে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্রান্ড (বিগ) গ্র‍্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের দেশের স্টার্ট-আপগুলো যাতে সহজেই দেশের মধ্যে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারে সেজন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এরই মধ্যেই আমরা স্টার্ট-আপ পলিসি নিয়ে কাজ করা শুরু করেছি।

তিনি আরো বলেন, আমাদের সরকারি কাজে টেন্ডারে আমরা খেয়াল করি, ৮-১০ বছর অভিজ্ঞতা চাওয়া হয়। অথবা নানা ধরনের সম্পদ চাওয়া হয়। কিন্তু স্টার্টআপের ক্ষেত্রে যাতে এমন সম্পদের শর্তের বদলে মেধাভিত্তিক সম্পদের ব্যবহার করা হয়। এমন বিষয়গুলোকে আমরা প্রাধান্য দিয়েই এ পলিসি তৈরিতে কাজ করছি। খসড়া পলিসি তৈরি করা হলে তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করা হবে।

প্রথম পর্যায়ে ২৮ জন বিচারক পাঁচটি স্ক্রিনিং বোর্ডের মাধ্যমে বাছাই করেন ২৮৬টি দেশীয় স্টার্টআপ। ১২ জুন থেকে শুরু হয় অনলাইন বুটক্যাম্প। বুট ক্যাম্পে গ্রুমিং শেষে এ ৬৫টি স্টার্টআপ নিয়েই শুরু হয় ১৩ পর্বের টিভি রিয়েলিটি শো। বাছাইকৃত ৬৫ স্টার্টআপ থেকে ২৬টি স্টার্টআপ নির্বাচিত হয়। এর সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে নির্বাচিত ১০টি ও আইডিয়া প্রকল্পের আওতাভুক্ত পোর্টফলিও স্টার্টআপের সেরা আরো ১০টি স্টার্টআপ অর্থাৎ মোট ৪৬টি স্টার্টআপকে নিয়ে হয় ‘বিগ ২০২১ গ্র্যান্ড ফিনালে’। সবশেষে সেরা একটি স্টার্টআপকে বিশেষ সম্মাননা ও এক লাখ মার্কিন ডলার সমমূল্যের অর্থ পুরস্কার দেওয়া হয়। একই সঙ্গে এ রিয়েলিটি শোর মাধ্যমে নির্বাচিত ২৬টি র্স্টাটআপ ও আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে নির্বাচিত ১০টি বিজয়ী র্স্টাটআপ প্রত্যেককে আইডিয়া প্রকল্পের আওতায় ১০ লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.