যুবলীগকে নিয়ে আমার একটা ভিশন আছে : যুবলীগ চেয়ারম্যান

আজ ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে (২য় তলার হলরুমে) বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ এর উদ্যোগে ঢাকা বিভাগ আওতাধীন মহানগর, জেলা ও উপজেলার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদকদের নিয়ে ঢাকা বিভাগীয় প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ বলেন আপনারা জানেন আমরা একটা ইমেজ সংকটের মধ্যে যুবলীগের দায়িত্ব নিয়েছি। আমাদের কি করতে হবে সেগুলোর মধ্যে দু’একটা জিনিস বলতে চাই। যুবলীগকে নিয়ে আমার একটা ভিশন আছে। প্রথমেই আমাদের শৃঙ্খলা আনতে হবে। শৃঙ্খলা ব্যাপক অর্থ বহন করে, এটা বলতে অনেক কিছুই বোঝায়। আমি একটা বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করবো সেটা হচ্ছে আমাদের মধ্যে যে ভেদাভেদ বা অর্ন্তদন্দ আছে এগুলো আমাদের পরিত্যাগ করতে হবে, দলের স্বার্থে।

অনেক মণীষীরা বলে গেছেন, যে ভেদাবেদ সৃষ্টি হয় অন্তরের ইগো থেকে। আমরা নিজেকে নিয়ে এত ব্যস্ত হয়ে যাই, এটাই মানুষে মানুষে দ্বন্দ সৃষ্টি করে। আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আপনারা ব্যক্তিগত মান অভিমান পরিহার করে দলের কথা চিন্তা করবেন। সব চেয়ে আগে প্রাধান্য দেবেন সংগঠনকে। সংগঠন আছে বলেই আমরা আছি। আমরা এক একজন জেলার সভাপতি, থানার সভাপতি সবকিছুই সংগঠনের জন্য। আজকে ১০/১১ বছর আমরা ক্ষমতায়। এরপরে অনেক কঠিন সময় আসতে পারে, থাকতেই পারে, এটাই স্বাভাবিক রীতি। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিশ্বাস করি, আমরা গণতন্ত্র বিশ্বাস করি, সুতরাং এটা আমরা জানি আজকে ক্ষমতা আছে, কালকে ক্ষমতা নেই। সুতরাং নিজে কি পেলাম না পেলাম চিন্তা না করে, সংগঠনের দিকে খেয়াল করেন। নিজস্ব অভিমান ভূলে গিয়ে আপনার পাশে যে ছিলো অথবা কোন কারণে ছিলো না তাকে আপনি গ্রহণ করুন। দয়া করে দলে কোন বিভেদ রাখবেন না। ভবিষ্যতে যুবলীগ কেমন হবে সে প্রসঙ্গে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা শেখ হাসিনার সংগঠন করেন, বঙ্গবন্ধুর সংগঠন করেন সেহেতু আমি বিশ্বাস করি আপনারা দেশপ্রেমী। আপনারা এই দেশকে ভালোবাসেন। সুতরাং আমাদের কর্ম হবে দেশপ্রেমের উপর ভিত্তি করে ভবিষ্যত প্রজন্মকে তুলে নিয়ে আসা, তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করা দেশ প্রেমের ব্যাপারে। দেশ প্রেম থাকলে দুর্নীতি হয় না। প্রকৃত দেশ প্রেম থাকলে বিভেদ উশৃঙ্খলা এগুলো কিছুই থাকে না। আমাদের যেটা হয়েছে আমরা শৃঙ্খলা থেকে আস্তে আস্তে সরে গেছি, যে দুর্নীতির দিকে ঝুকে গেছি এটার জন্য আমি কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে দোষ দেবো না। এটা একটা সামাজিক অবক্ষয়। এটার জন্য কোন ব্যক্তিও দায়ী নয়, কোন গোষ্ঠীও দায়ী নয়।

এ সময় যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল সবাইকে মুজিব শত বর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে সৎ এবং আদর্শবান হতে হবে। নেত্রীর উক্তি মনে রাখতে হবে, সততাই শক্তি মানবতাই মুক্তি। আপনাদের সুচিন্তিত্ব মতামত নিয়ে যুবলীগ কে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব ইনশাআল্লাহ্ ।

সভায় সভাপতিত্ব করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ ও পরিচালনা করেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল। আরো বক্তব্য রাখেন যুবলীগ ঢাকা জেলার সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, গাজীপুর জেলার যুগ্ম আহবায়ক সেলিম আজাদ, গাজীপুর মহানগর আহবায়ক মোঃ কামরুল ইসলাম সরকার রাসেল, যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, সুমন আহম্মেদ শান্ত বাবু, শরীয়তপুর জেলা সভাপতি এম এম জাহাঙ্গীর, টাংগাইল জেলা সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মানিক, মানিকগঞ্জ জেলা আহবায়ক আব্দুর রাজ্জাক রাজা, রাজবাড়ী আহবায়ক মোঃ জহুরুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ জেলা আহবায়ক আমিনুল ইসলাম বকুল, যুগ্ম আহবায়ক এড. মীর মোঃ আমিনুল ইসলাম সোহেল, মোঃ রুহুল আমিন, গোপালগঞ্জ জেলা সভাপতি জিএম সাহাবউদ্দিন আজম, সাধারণ সম্পাদক এমবি সাইফ (বি মোল্লা), নরসিংদী সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ গোস্বামী, নারায়নগঞ্জ সভাপতি আলহাজ¦ আব্দুল কাদির, মুন্সীগঞ্জ জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ শাহজাহান খাঁন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফেরদৌস আলম খান, মাদারীপুর জেলা সভাপতি মোঃ আতাহার সরদার, সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রুবেল খাঁন ফদিরপুর জেলা আহবায়ক এইচ এম ফুয়াদ প্রমূখ।

আরও পড়ুন
Loading...