মিয়ানমারে সেনা কর্মকর্তার সহযোগীকে হত্যায় ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

সেনাবাহিনীর এক ক্যাপ্টেনের সহযোগীকে হত্যার অপরাধে ১৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে মিয়ানমারের সামরিক আদালত। শুক্রবার দেশটির সামরিক বাহিনীর মালিকানাধীন মায়াবতী টেলিভিশন এ খবর দিয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের বাণিজ্যিক রাজধানী ইয়াংগুনের নর্থ ওক্কালাপা জেলায় সেনাবাহিনীর ওই ক্যাপ্টেনের সহযোগীকে খুন করা হয়। সেই ঘটনায় ১৯জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। রায় ঘোষণার সময় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ১৭ জন উপস্থিত ছিলেন না।

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের পর এটাই এ ধরনের প্রথম রায়। গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখলের পর থেকে টালমাটাল মিয়ানমারে এরই মথ্যে ৬০০-র বেশি বিক্ষোভকারী প্রাণও হারিয়েছে। তবে কবে ও কিভাবে সেনা কর্মকর্তার ওই সহযোগী খুন হয়েছিলেন তার বিস্তারিত প্রকাশ করা হয়নি সেই প্রতিবেদনে।

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে ১ ফেব্রুয়ারিতে সামরিক অভ্যুত্থান ঘটেছে। গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে দেশটির নিয়ন্ত্রণ এখন সেনাবাহিনীর দখল। যে কারণে দেশটিতে মার্শাল ল’ জারি রয়েছে। তাই সামরিক আদালত বিচার করতে ও রায় দিতে পারছে। এদিকে সেনাবাহিনীর এই ক্ষমতা দখলে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছে দেশটির গণতন্ত্রকামী নাগরিকরা। বিক্ষোভ বানচাল করতে এরইমধ্যে ছয় শতাধিক নাগরিককে হত্যা করেছে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী।

আরও পড়ুন
Loading...