মাছের ড্রাম থেকে বের হলো জলজ্যান্ত মানুষ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত ‘সবচেয়ে কঠোর’ লকডাউনে মধ্যেও বাড়ি যাচ্ছিলেন ১০ জন। একটি মাছের ট্রাকে ড্রামের ভেতর চেপে বসে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ধরা পড়লেন।

ট্রাকটি ঢাকা থেকে বের হয়ে জয়দেবপুর চৌরাস্তা পাড় হলেও রাজেন্দ্রপুর এলাকায় মহানগর পুলিশের চোখ ফাঁকি দিতে পারেননি মাছের ড্রামে লুকিয়ে থাকা যাত্রীরা। পুলিশ তাদের ড্রাম থেকে বের করে ছেড়ে দিলেও ট্রাকচালকের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে মামলা করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় জিএমপি’র চেকপোস্টে ওই ট্রাকে তল্লাশি চালায় পুলিশ। পরে ওই ১০ জনকে ছেড়ে দিয়ে ট্রাকচালকের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর জোনের সহকারী কমিশনার মো. বেলাল হোসেন বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের রাজেন্দ্রপুর চৌরাস্তায় চেকপোস্ট বসিয়ে বিভিন্ন গাড়িতে তল্লাশি চালানো হচ্ছিল। ওই সময় ময়মনসিংহগামী মাছবাহী ট্রাকটি দেখে সন্দেহ হলে চেকপোস্টে থামিয়ে তল্লাশি করা হয়। পরে মাছের ড্রামের ভেতর থেকে ১০ জন যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। তারা ড্রামের ভেতর বসা ছিল। এরপর পুলিশ যাত্রীদের নামিয়ে ছেড়ে দেয় এবং চালকের বিরুদ্ধে ট্রাফিক আইনে মামলা করে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.