মন্ত্রিসভায় রদবদল

অবশেষে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের এক বছরের মাথায় মন্ত্রিসভায় রদবদল করা হয়েছে। তবে বড় কোনো রদবদল বা নতুন কেউ আসেননি মন্ত্রিসভায়। মাত্র তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দপ্তর পরিবর্তন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই পরিবর্তনে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় হারিয়েছেন শ ম রেজাউল করিম। তাকে ওই দপ্তর থেকে সরিয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া দপ্তর পরিবর্তন হয়েছে প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু ও শরীফ আহমেদের। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী খসরুকে পাঠানো হয়েছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে। সমাজকল্যাণ থেকে শরীফকে নেওয়া হয়েছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী করে। এই রদবদলে এখন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে কোনো পূর্ণ মন্ত্রী নেই। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে থাকছেন শরীফ।

গতকাল বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী রুলস অব বিজনেস, ১৯৯৬-এর রুল ৩ (৪) অনুযায়ী এসব মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পুনর্বণ্টন করা হয়েছে।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয়ের পর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৭ ফেব্রুয়ারি নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ নেন। এরপর এরও আগে একবার মন্ত্রিসভায় দুই প্রতিমন্ত্রীকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। একবার সামান্য রদবদল আনা হয়। গত বছরের মে মাসে মন্ত্রিসভায় সামান্য রদবদল আনা হয়। সে সময় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে তথ্য প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছিল।

গত বছরের ১২ জুলাই ইমরান আহমেদকে প্রতিমন্ত্রী থেকে প্রবাসী কল্যাণের মন্ত্রী এবং সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত করা হয়।

আরও পড়ুন
Loading...