‘ভোলাগঞ্জ রোপওয়ে স্টেশন রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি’

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারিতে অবস্থিত রোপওয়ে (রজ্জুপথ) স্টেশন পরিদর্শন করছেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। পরিদর্শনকালে রেলমন্ত্রী বলেন, রোপওয়ে স্টেশনটি প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে। এখন এটি রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি। এটিকে রক্ষায় সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী উন্নয়ন কার্যক্রম শুরু হবে।

আজ রোববার সকাল ১০টার দিকে তিনি পরিদর্শনে আসেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের অনেক পুরোনো রোপওয়ের অবস্থা দেখতে সকালে সরেজমিনে ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারি এলাকায় যান রেলমন্ত্রী। পরিদর্শনকালে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামছুজ্জামান তার সঙ্গে ছিলেন। এ সময় ধলাই নদীও দেখেন মন্ত্রী। এখান থেকে মন্ত্রী রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে সড়ক পথে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলা সদরে অবস্থিত বাংলাদেশ রেলওয়ের একমাত্র স্লিপার কারখানা পরিদর্শনের উদ্দেশ্যে রওনা দেন।

উল্লেখ্য, সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জে দেশের সর্ববৃহৎ পাথর কোয়ারির অবস্থান। মেঘালয় রাজ্যের খাসিয়া জৈন্তিয়া পাহাড় থেকে বর্ষাকালে ঢল নামে। ধলাই নদীতে ঢলের সঙ্গে নেমে আসে পাথর। পরবর্তী বর্ষার আগমন পর্যন্ত চলে পাথর আহরণ।

এছাড়া রয়েছে ১৯৬৪-১৯৬৯ সালে নির্মিত ভোলাগঞ্জ রোপওয়ে প্রকল্প। যার দৈর্ঘ্য ১১ মাইল ও টাওয়ার এক্সক্যাভেশন প্ল্যান্টের সংখ্যা ১২০টি। ভোলাগঞ্জে উত্তোলিত পাথর ছাতক সিমেন্ট ফ্যাক্টরীতে পাঠানো হতো এই রোপওয়ের মাধ্যমে । ১৯৯৪ সালের পর রোপওয়ের লাইন অনেক জায়গায় নষ্ট হয়ে গেলে এই পদ্ধতিতে পাথর পরিবহন বন্ধ হয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন
Loading...