বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩৯ লাখ ৩২ হাজার ছাড়ালো

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭ হাজার ৩৭১ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু কমেছে প্রায় ১ হাজার ২০০ জনে। সবশেষ মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৯ লাখ ৩২ হাজার ৬৮৬ জনে।

আর করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬৩ হাজার ৯৯৯ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় ৪০ হাজার। সবমিলিয়ে বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ১৫ লাখ ৪৪ হাজার ৬১৫ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১৬ কোটি ৬০ লাখ ৭১ হাজার ৫৭০ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে রোববার (২৭ জুন) সকালে এই তথ্য জানা গেছে। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৯০ হাজার ১৩৪ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ৬ লাখ ১৯ হাজার ৩৪৩ জন মারা গেছেন।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ১ কোটি ৮৩ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ১২ হাজার ৮১৯ জনের।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ২৩ লাখ ২ হাজার ৩২০ জন এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৭৮০ জন।

এছাড়া এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৫৭ লাখ ৬৮ হাজার ৪৪৩ জন, রাশিয়ায় ৫৪ লাখ ৩০ হাজার ৭৫৩ জন, যুক্তরাজ্যে ৪৭ লাখ ১৭ হাজার ৮১১ জন, ইতালিতে ৪২ লাখ ৫৭ হাজার ২৮৯ জন, তুরস্কে ৫৪ লাখ ৪ হাজার ১৪৪ জন, স্পেনে ৩৭ লাখ ৮২ হাজার ৪৬৩ জন, জার্মানিতে ৩৭ লাখ ৩৩ হাজার ৭৪৯ জন এবং মেক্সিকোতে ২৪ লাখ ৯৮ হাজার ৩৫৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ১০ হাজার ৯৫১ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৩২ হাজার ৬৮৩ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ২৮ হাজার ৮৯ জন, ইতালিতে এক লাখ ২৭ হাজার ৪৫৮ জন, তুরস্কে ৪৯ হাজার ৫২৪ জন, স্পেনে ৮০ হাজার ৭৭৯ জন, জার্মানিতে ৯১ হাজার ২৮৬ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ ৩২ হাজার ৩৪৬ জন মারা গেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Leave A Reply

Your email address will not be published.