বিশ্বজুড়ে আবারও ভয়ংকর রূপ নিচ্ছে করোনা

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিশ্বব্যাপী ভয়াবহভাবে বাড়তে থাকলেও অর্থনীতি সচল রাখতে লকডাউন শিথিল করতে শুরু করেছে বিভিন্ন দেশ। এ মুহূর্তে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হলেও দেশের মানুষের স্বার্থে অর্থনীতি পুনরুদ্ধারকে গুরুত্ব দিচ্ছে মোদি সরকার। চাকরি সন্ধানী তরুণ জনগোষ্ঠী নিয়ে বিপাকে পড়ছে ফ্রান্স সরকার। লকডাউন শিথিল করলেও ভারতে বাড়ছেই করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা। এরমধ্যে ঋণমান নির্ণয়কারী সংস্থা মুডিস পূর্বাভাস দিয়েছে, চলতি বছর এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির এ দেশের ঋণের বোঝা বাড়বে, কমবে প্রবৃদ্ধি।

প্রায় একই পূর্বাভাস আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংকের। অর্থনীতিতে ধ্বস ঠেকাতে তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে খুলেছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। মোদি সরকার বলছে, এ মুহূর্তে করোনা পরিস্থিতি গুরুতর হলেও দেশের সাধারণ মানুষের কথা ভেবে অর্থনীতিকে প্রাধান্য দিতেই শিথিল করা হয়েছে লকডাউন। এদিকে কাগজের নোট থেকে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে আগামী বছরই ভার্চুয়াল মুদ্রার দিকে যাচ্ছে চীন। যা স্থান দখল করবে বিটকয়েন আর ডলারের।

এরমধ্য দিয়ে চীনে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক আধ্যিপত্য কমবে বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা। পাশাপাশি ওয়াশিংটনের হস্তক্ষেপ ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা আছে এমন দেশগুলোর সাথে বাণিজ্য পরিচালনা করতে পারবে চীন। স্মার্টফোন নম্বর এবং একটি অ্যাপের মাধ্যমে ডিজিটাল ইউয়ান ব্যবহার করতে হবে।

এদিকে করোনা সংকটে যাত্রীবাহী বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় এয়ারবাস আর বোয়িংকে বিমানের সরবরাহ স্থগিত করার আবেদন জানিয়েছে কাতার এয়ারওয়েজ। তা মানতে নারাজ দুই বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। বিশ্বের শীর্ষ দুই বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের কাছে শত কোটি ডলারের বিমানের অর্ডার আছে কাতার এয়ারওয়েজের। মহামারীর কারণে বেশিরভাগ বিমানই এখন অলস পড়ে আছে।

আগামী সময়টা দেশের তরুণ জনগোষ্ঠীর জন্য বেশ চ্যালেঞ্জিং হিসেবে দেখছে ফ্রান্স সরকার। অনেক তরুণ এ সময়টায় পড়াশোনা শেষ করে চাকরির খোঁজ করবেন। এক্ষেত্রে ফ্রান্স সরকার বলছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রশিক্ষণমূলক শিক্ষা কার্যক্রম আরও বাড়ানো উচিত। করোনা মহামারির কারণে চলতি বছর দেশটির অর্থনীতি ১১ শতাংশ পর্যন্ত সংকুচিত হতে পারে। ধীরে ধীরে বিভিন্ন স্থান থেকে লকডাউন তুলে নিচ্ছে দেশটির সরকার।

আরও পড়ুন
Loading...