বরিশালে নতুন শনাক্তের ৪ গুণ সুস্থ, মৃত্যু ৮

বরিশাল বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমতে শুরু করেছে। বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনায় ৬ জন ও উপসর্গ নিয়ে ২ জন মারা গেছেন।

একই সময়ে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২৫৫ জন। আর এ সময়ের মধ্যে শনাক্তের ৪ গুণের বেশি, ১ হাজার ৯৬ জন সুস্থতা লাভ করেছেন।

মঙ্গলবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে দুইজন এবং করোনা ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বিভাগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরো তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৬ জনের মধ্যে বরিশালে দুইজন, পটুয়াখালীতে একজন, ভোলায় একজন ও বরগুনায় দুইজন রয়েছেন। সব মিলিয়ে বরিশাল বিভাগে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬০৬ জনে।

একই সময় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৫৫ জন। এ নিয়ে বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪১ হাজার ৫৯৭ জনে। আর এ সময়ের মধ্যে সুস্থ হয়েছে ১ হাজার ৯৬ জন, যা নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ২৬ হাজার ২৪২ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে বরিশাল জেলায় নতুন ১১০ জন নিয়ে মোট ১৭ হাজার ৬৩ জন, পটুয়াখালীতে নতুন ৪৮ জন নিয়ে মোট ৫ হাজার ৭১৭ জন, ভোলায় নতুন ৪৮ জনসহ মোট ৫ হাজার ৮৩১ জন, পিরোজপুরে নতুন ১৩ জনসহ মোট ৫ হাজার ১২ জন, বরগুনায় নতুন ২৭ জনসহ মোট ৩ হাজার ৫৪৫ জন ও ঝালকাঠিতে নতুন ৯ জন নিয়ে মোট ৪ হাজার ৪২৯ জন রয়েছেন।

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালকের দফতর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে দুইজনের এবং করোনা ওয়ার্ডে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। যা নিয়ে শুধু শেবাচিম হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডেই উপসর্গ নিয়ে ৯১৯ জন এবং করোনা ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩৬৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা ৯১৯ জনের মধ্যে ৬৪ জনের কোভিড টেস্টের রিপোর্ট এখনও হাতে পাওয়া যায়নি।

ওই হাসপাতাল পরিচালক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় (মঙ্গলবার) সকাল পর্যন্ত শেবাচিমের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১৫ জন ও করোনা ওয়ার্ডে ১৬ জন ভর্তি হয়েছেন। করোনা ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে এখন ১৭০ জন চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ৬২ জন করোনা ওয়ার্ডে এবং ১০৮ জন আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আরটি পিসিআর ল্যাবে মোট ১৮৮ জন করোনা পরীক্ষা করান। এর মধ্যে ৩৯ দশমিক ৩৬ শতাংশ পজিটিভ শনাক্তের হার।

Leave A Reply

Your email address will not be published.