প্রতিবন্ধীরা এখন সামাজিক মর্যাদা নিয়ে বেঁচে আছে: নিখিল

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেছেন, দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী, বাক ও পক্ষাঘাত প্রতিবন্ধী, হিজড়ারা ছিল সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী, অবহেলিত মানুষ। বঙ্গবন্ধু কন্যা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধীদের সামাজিক মর্যাদা নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার (১০ জুলাই) সকালে যুবলীগের উদ্যোগে মিরপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে করোনা সংকট অসহায় হয়ে পড়া ৫০০ দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে ত্রাণসামগ্রী (নগদ অর্থ, কাপড়, চাল, ডাল, আলু) বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, এক সময় আমাদের এই সমাজে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী, বাকপ্রতিবন্ধী, শ্রবণপ্রতিবন্ধী বা পক্ষঘাত প্রতিবন্ধীদের অভিশাপ হিসেবে ধরা হতো। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যা সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার পরম মমতায় কোন ধরণের প্রতিবন্ধীই আজ সমাজের অভিশাপ নয়। তারা আজ আমাদের দেশের সম্পদ। শেখ হাসিনার আমলে কোন প্রতিবন্ধীই উপেক্ষিত নয়। সমাজে সাধারণ মানুষের মতই সম্মান দিয়েছেন তিনি। বিভিন্ন প্রতিবন্ধীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। প্রতিবন্ধীরা এখন সামাজিক মর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারছে।

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের উদ্দেশ্যে মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা মানুষের কল্যাণের জন্যই রাজনীতি করেন। প্রতিটি স্তরের মানুষকে তিনি ভালো রাখতে কাজ করছে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে কেউ না খেয়ে থাকে না। বঙ্গবন্ধু কন্যা আপনাদের পাশে আছে, যে কোন সংকটে সবসময় যুবলীগ প্রতিবন্ধীদের পাশে থাকবে। এসময় যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও যুবলীগের পক্ষ থেকে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের ধন্যবাদ জানায় তিনি।

তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল সমাজের সকল ধরণের প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিকদের নিয়ে কাজ করেন। প্রতিবন্ধীরা যেন সমাজে সম্মানের সাথে বেঁচে থাকতে পারেন সে ব্যবস্থা করেছেন।

উপস্থিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সংস্থার মহাসচিব আইয়ুব আলী হাওলাদার বলেন, প্রতিবন্ধীরা জানে না কিভাবে টিকার রেজিষ্ট্রেশন করতে হয়। তিনি যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করার জন্য অনুরোধ করেন। তিনি প্রতিবন্ধীদের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে ধন্যবাদ জানান।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী আইয়ুব আলীর অনুরোধের জবাবে যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক প্রতিবন্ধীদের জন্য আলাদাভাবে টিকার ব্যবস্থা, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করবেন বলে আস্বস্ত করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এড. মামুনুর রশীদ, মোঃ আনোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সাইফুর রহমান সোহাগ, সোহেল পারভেজ, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দপ্তর সম্পাদক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল, উপ-ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোঃ আলতাফ হোসেন, উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. মোঃ এনামুল হোসেন সুমন, উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হরে কৃষ্ণা বৈদ্য, ঢাকা মহানগর উত্তর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, কার্যনির্বাহী সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল, কেন্দ্রীয় সদস্য আসাদুজ্জামান আজম, মো. কাইফ ইসলামসহ কেন্দ্রীয়, মহানগর ও বিভিন্ন ওয়ার্ড যুবলীগের নেতৃবৃন্দ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.