পোপকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান ট্রুডোর

কানাডায় বন্ধ হয়ে যাওয়া আদিবাসী স্কুলের দুটি গণকবরে প্রায় হাজারখানেক মরদেহের সন্ধানের পর এ ঘটনায় ক্যাথলিক চার্চকে দোষারোপ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এছাড়া খ্রিস্টধর্মের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু পোপকে কানাডায় এসে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (২৫ জুন) রাজধানী অটোয়ায় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় এ কথা বলেন ট্রুডো।

তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে পোপের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবনের জন্য বলেছি। তাকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি এটা শুধুমাত্র একটি ক্ষমাপ্রার্থনা নয়, এটা হলো কানাডার আদিবাসী এবং মাটির প্রতি ক্ষমা চাওয়া।’

‘আমি জানি ক্যাথলিক চার্চ নেতৃত্ব বিষয়টি দেখছেন এবং পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়ে খুবই আন্তরিকভাবে কাজ করছেন।’

এর আগে বৃহস্পতিবার কানাডার সাসকাচেওয়ান প্রদেশে বন্ধ হয়ে যাওয়া একটি আবাসিক আদিবাসী স্কুলে ৭৫১টি অচিহ্নিত কবর শনাক্ত হয়। তারও এক সপ্তাহখানেক আগে ব্রিটিশ কলম্বিয়ার একটি বন্ধ হয়ে যাওয়া স্কুল থেকে শনাক্ত হয়েছিল ২১৫টি কবর।

১৮৩১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত কানাডায় আবাসিক স্কুল ব্যবস্থার প্রচলন ছিল। ফেডারেল সরকারের পক্ষে সেগুলো পরিচালনা করত ক্যাথলিক চার্চ। এই দেড়শ বছরেরও বেশি সময়ে স্কুলগুলোতে ভর্তির জন্য দেড় লাখেরও বেশি আদিবাসী শিশুকে তাদের পরিবারের কাছ থেকে নিয়ে আসা হয়।

এই আবাসিক স্কুল ব্যবস্থা দেশটির আদিবাসীদের ওপর সাংস্কৃতিক গণহত্যা চালিয়েছে বলে ফেডারেল কমিশনের এক রিপোর্টে উঠে এসেছে।

এ বিষয়ে ট্রুডো বলেন, ‘আমি দেশজুড়ে অনেক ক্যাথলিকের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা চান এই বিষয়ে চার্চ একটি ইতিবাচক ভূমিকা পালন করুক।’

সূত্র: রয়টার্স

Leave A Reply

Your email address will not be published.