পিস্তল ঠেকিয়ে ভারতে নিয়ে কিডনি বিক্রির চেষ্টায় গ্রেপ্তার ১

ভারতে নিয়ে ভালো চাকরি দেওয়া হবে, এমন প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবককে পাচারের চেষ্টাকালে আনিসুর রহমান নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে বিজিবি। আনিসুর ‘কিডনি বিক্রি চক্রের’ সক্রিয়া সদস্য বলে জানা গেছে। পাচার হতে যাওয়া ভুক্তভোগী ওই যুবকের নাম ইউনুচ আলী। বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) বিকেলে বেনাপোল চেকপোস্ট থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করার পাশাপাশি ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে বিজিবি।

ভুক্তভোগী ইউনুচ সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার ঢুকুরিয়া বেড়া গ্রামের ইদ্রিস আলী মণ্ডলের ছেলে। অভিযুক্ত আনিসুর রহমানের বাড়ি গাজীপুর জেলায়।

ইউনুচ আলী বলেন, আনিসুর রহমান ভারতে ভালো কাজ দেওয়ার কথা বলে আমাকে ঢাকায় নিয়ে আসে। পরে একটি বাড়িতে নিয়ে জানায়, ভারতে যাওয়ার পর একজনকে আমার একটি কিডনি দিতে হবে। এতে আমি রাজি না হলে আনিসুর ক্ষেপে যায়। এক পর্যায়ে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে মুখ বন্ধ রাখতে বলে সে। পরে বিমানে করে ঢাকা থেকে বেনাপোল নিয়ে আসে। বেনাপোল ইমিগ্রেশনে কৌশলে পালিয়ে গিয়ে বিজিবির কাছে ঘটনাটি জানাই। পরে বিজিবি আনিসুরকে আটক ও আমাকে উদ্ধার করে।

এদিকে অভিযুক্ত আনিসুর রহমান বলেন, ইউনুচের সঙ্গে একটি কোম্পানির কিডনি দেওয়া বাবদ চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী ইউনুচকে ভারতে পাঠানোর জন্য বেনাপোলে নিয়ে আসি। তবে চুক্তি করা কোম্পানির কোনো নাম ঠিকানা বলতে পারেননি আনিসুর।

এদিকে ভুক্তভোগী ইউনুচের কাছ থেকে আনিসুরের দেওয়া এক নারীর পাসপোর্ট উদ্ধার করে বিজিবি। আনিসুর ইউনুচকে পাসপোর্টটি দিয়েছিল কলকাতায় পৌঁছে দিতে। পরে পাসপোর্টের ওই নারীকে ফোন দেওয়া হলে তিনি জানান, ফেসবুকে বাংলাদেশ কিডনি ডোনার সংস্থা নামে একটি বিজ্ঞাপন দেখে আনিসুরের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিনি। পরে আনিসুর তার কাছ থেকে পাসপোর্টটি জমা নেয়।

বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবি ক্যাম্পের সুবদার আশরাফ আলী বলেন, ভুক্তভোগী ও অভিযুক্ত বিজিবির হেফাজতে রয়েছেন। দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.