পান্টের ব্যাটিং দেখলে হার্ট অ্যাটাকের উপক্রম হয়!

ব্রিসবেন টেস্টে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে ভারতকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন রিশাভ পান্ট। ম্যাচ চলাকালীন সময়ে তার ব্যাটিং দেখে হার্ট অ্যাটাকের উপক্রম হয়েছিল বলে জানিয়েছেন রবি শাস্ত্রী।

রিশাভ পান্টের বিরুদ্ধে সবসময় অভিযোগ ছিল, ভাল শুরু করেও বারবার উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে আসেন। এর আগে সিডনিতে তৃতীয় টেস্টেও ৯৭ রানে আউট হয়েছিলেন। তবে ব্রিসবেনে অপরাজিত ৮৯ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ জিতিয়ে তবেই মাঠ ছাড়েন পান্ট। তাকে নিয়ে কোচ রবি শাস্ত্রী মজা করেই বলেছেন, পান্টের ব্যাটিং দেখলে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার উপক্রম হয়।

ব্রিসবেনে ম্যাচ শেষে কোচ রবি শাস্ত্রী বলেন, পান্ট খুব ভাল শ্রোতা। ও বোঝে। ও বুঝতে পারে যে ওর স্বাভাবিক খেলা কোনটা! তবে ও এটাও জানে, ওকে সাবধান এবং আগ্রাসনের মধ্যে একটি সঠিক ভারসাম্য বজায় রাখতে হবে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ম্যাচ জয়ের পর কোচ হিসেবে ড্রেসিংরুমে বক্তব্য রাখেন রবি শাস্ত্রী। সেখানেই নাকি তিনি পান্টকে বলেন, ব্যাট করার সময় আমার হার্ট অ্যাটাক ধরিয়ে দিয়েছিলে। দারুণ খেলেছ তুমি। অ্যাডিলেডে দিন রাতের টেস্টে প্রথম এগারোতে সুযোগ হয়নি রিশাভ পান্ডের। কিন্তু গোলাপি বলের টেস্টে রান না পাওয়ায় ঋদ্ধিমান সাহার পরিবর্তে দ্বিতীয় টেস্ট থেকেই প্রথম একাদশে সুযোগ পেয়ে যান তিনি। মেলবোর্নে প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ২৯ রান।

সিডনিতে তৃতীয় টেস্টে একের পর এক ক্যাচ ফেলে সমালোচনার মুখে পড়েন পান্ট। প্রথম ইনিংসে ৩৬ রান করলেও দ্বিতীয় ইনিংসে আগ্রাসী ব্যাটিং করেন তিনি। পঞ্চম দিনে অজি বোলারদের বিরুদ্ধে ঝড়ো ব্যাটিংয়ে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। তিন রানের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া করে আফসোস নিয়ে মাঠ ছাড়েন। ব্রিসবেনে শেষ টেস্টের প্রথম ইনিংসে ২৩ রান করেন পান্ট। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে অজিদের চোখে চোখ রেখে ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলেন। অপরাজিত ৮৯ রান করে ম্যাচের সেরাও হন তিনি।

আরও পড়ুন
Loading...