পাকিস্তানের পারমাণবিক বোমার জনকের মৃত্যু

পাকিস্তানের পরমাণু বোমার জনক ড. আবদুল কাদির খান মারা গেছেন। সম্প্রতি তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে শনিবার ভোরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রোববার সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। রোববার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য ডন।

এদিকে ড. আবদুল কাদির খানের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারভেজ খাট্টাক। তার মৃত্যুকে পাকিস্তানের জন্য বড় ধরনের ক্ষতি বলেও আখ্যায়িত করেন তিনি।

তিনি বলেন, জাতির প্রতি তার সেবার জন্য পাকিস্তান তাকে আজীবন স্মরণ করবে। প্রতিরক্ষা সামর্থ্য বাড়াতে তার অবদানের জন্য জাতি তার কাছে ঋণী।

পাকিস্তানের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত বার্তাসংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস অব পাকিস্তান (এপিপি)-এর তথ্য অনুযায়ী, গত আগস্ট মাসের শেষের দিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন ড. আবদুল কাদির খান। এরপর গত ২৬ আগস্ট তিনি রিসার্চ ল্যাবরেটরিজ হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে তাকে রাওয়ালপিন্ডির সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৩৬ সালে ভারতের মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপালে জন্মগ্রহণ করেন বিখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী ড. আবদুল কাদির খান। পরে ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর পরিবারের সাথে তিনি পাকিস্তানে চলে যান। পাকিস্তানের পরমাণু কর্মসূচির জনক হিসেবে কাদির খান পাকিস্তানিদের কাছে জাতীয় বীর হিসেবে পরিচিত।

Leave A Reply

Your email address will not be published.