দেশে নির্মিত হচ্ছে হেলি পোর্ট

বেসরকারি হেলিকপ্টারের বাণিজ্যিক প্রসারে বঙ্গবন্ধু হেলি পোর্ট নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এটি হবে দেশের প্রথম হেলি পোর্ট। আগামী জুলাই মাসে এর নির্মাণ কাজ শুরু হবে। ৫০টি হেলিকপ্টারের ধারণ ক্ষমতার এই বন্দর নির্মাণে লেগে যাবে অন্তত দুই বছর। এই বন্দর নির্মিত হলে হেলিকপ্টার খাতের সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন হবে বলে আশা করছেন, হেলিকপ্টার অপারেটররা।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণকাজের শুরু থেকেই হেলিকপ্টারের নিজস্ব বন্দরের বিষয়টি আলোচনায় আসে। সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষকে নিজস্ব নতুন হ্যাঙ্গার নির্মাণের তাগিদ দেন অপারেটররা। শেষ পর্যন্ত হ্যাঙ্গার পাওয়া গেলেও নিজস্ব বন্দর পেতে তাদের অপেক্ষা করতে হবে আরো অন্তত দুই বছর।

রাজধানীর খিলক্ষেত সংলগ্ন কাওলায় ঝিল আর খোলা জায়গা ভরাট করেই নির্মাণ করা হবে হেলি পোর্ট। সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নকশা তৈরি হয়েছে। শিগগিরই শুরু হবে কাজ।

এই হেলি পোর্টের সাথেই হেলিকপ্টারের নতুন হ্যাঙ্গারটাও এখানে নির্মাণ করা হলে হেলিকপ্টারের ফ্লাইট পরিচালনা সহজ হতো বলে জানান এই খাতের উদ্যোক্তারা।

হেলিকপ্টারের কর্পোরেট ও বাণিজ্যিক সেবার প্রসার ঘটবে বলেও জানান সংশ্লিষ্টরা।

বঙ্গবন্ধু হেলি পোর্ট নির্মিত হলে হেলিকপ্টার খাতে বড় ধরনের অগ্রগতি আসবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.