দুই শতাধিক দাগী অপরাধীর তালিকা করেছে ডিএমপি

ঈদে রাজধানীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দুই শতাধিক দাগী অপরাধীর তালিকা করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। থানা পুলিশ ২৪ ঘণ্টা এদের নজরদারিতে রাখবে বলে জানিয়েছে ডিএমপি। এদিকে, আইনশৃঙ্খলা কিংবা মানবিক যেকোনো পরিস্থিতি সামাল দিতে কুইক রেসপন্স টিম প্রস্তুত রাখার পরামর্শ দিয়েছেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক।

অন্যবারের মতো জাতীয় ঈদগাহ ঘিরে আইনশঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর নিরাপত্তা আয়োজনের তোড়জোড় নেই এবার। নেই ঈদযাত্রার সেই চিরচেনা রূপও। করোনা মহামারী বদলে দিয়েছে সামাজিক ও অর্থনৈতিক অনেক হিসেব নিকেশ। এই পরিবর্তন সার্বিক অপরাধচিত্রেও প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক শহীদুল হকের।তিনি বলেন, ‘কারও যখন অভাব হয় তখন তার ভেতর অপরাধবোধও সৃষ্টি হয়। অভাব থেকেই নানা অপরাধমূলক কাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে অনেকেই।’

অপরাধের এই নতুন মাত্রা নিয়ে চিন্তিত আবাসিক এলাকার নিরাপত্তায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানগুলোও। তবে অপরাধ রুখতে সেভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছেন তাঁরা। আনসার সদস্যদের টিম লিডার বলেন, ‘আমার সদস্যদের সকলকে নিরাপত্তার জন্য দিকনির্দেশনা দিয়েছি।’ করোনার বিস্তার ঠেকাতে গিয়ে সংক্রমিত পুলিশ সদস্যের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিনই। ঈদের ছুটিতে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে তা কোনো প্রভাব ফেলবে না বলে দাবি করে ডিএমপি জানাচ্ছে অপরাধ ঠেকাতে এরই মধ্যে দাগী অপরাধীদের তালিকা করে নজর রাখা হচ্ছে।

ডিএমপি অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বলেন, ‘আমরা জানি এখন অনেকেই বাসাতে আছেন। এরইমধ্যে কিছু কিছু অপরাধ প্রবণতা আমরা লক্ষ করেছি।’ পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক শহীদুল হক বলেন, ‘২৪ ঘণ্টা পুলিশকে সচেতন থাকতে হবে।’ ডিএমপি জানিয়েছে, দাগী অপরাধীদের তালিকায় ছিনতাইকারী, চোর এবং অজ্ঞান ও মলম পার্টির সদস্যদের নাম রয়েছে।

আরও পড়ুন
Loading...