৩ ছোট ফেরিতে শুধু পার হচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স

তীব্র নাব্য সংকট

পদ্মায় দ্রুত পানি কমলেও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে এখনো তীব্র স্রোত রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ সে.মি. পানি হ্রাস পেয়েছে। এভাবে দ্রুত পানি কমতে থাকায় প্রকট রূপ নিয়েছে এ রুটে নাব্য সংকট। এ কারণে রোববার রাতে এ নৌরুটের সব ফেরি বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে সোমবার সকাল থেকে ৩টি ছোট ফেরি দিয়ে কোনোমতে জরুরি অ্যাম্বুলেন্স পারাপার চালু করা হয়েছে।

এদিকে ফেরি বন্ধ থাকায় পারাপারের অপেক্ষায় উভয় পাড়ে সহস্রাধিক যানবাহন আটকা পড়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকরা। এ নৌরুট বন্ধ থাকায় যাত্রী ও যানবাহনগুলোকে বিকল্প রুট ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে বিআইডব্লিউটিসি।

বিআইডব্লিউটিএ ও বিআইডব্লিউটিসিসহ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, গত জুলাই- আগস্ট মাস থেকেই তীব্র স্রোত ও নাব্য সংকটে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। গত ৪৮ ঘণ্টায় এ রুটে ৩৮ সেন্টিমিটারসহ গত কয়েক দিনে হুহু করছে কমছে পানি। এর ফলে লৌহজং টার্নিং ও বিকল্প রুটের মুখে বড় ধরনের ডুবোচর দেখা দেয়ায় রোববার রাত ৮টা থেকে এ রুটে সব ফেরি চলাচল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে বিআইডব্লিউটিসি। সোমবার সকাল থেকে ৩টি ছোট ফেরি শুধুমাত্র অ্যাম্বুলেন্স পারাপার করছে। কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ৪টি রোরোসহ মোট ১৮টি ফেরি থাকলেও উদ্ভুত সংকটের কারণে মাঝে মাঝেই চলাচল ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘসময় বন্ধও থাকছে ফেরি চলাচল। উভয় ঘাটে সহস্রাধিক যানবাহনের লম্বা লাইন পড়েছে। ফলে দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না এই নৌরুট ব্যবহারকারীদের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.