তাসকিন বোলিং করবে, ফিল্ডিং করবে না!

বাংলাদেশে জাতীয় দলের বর্তমান সময়ের ফর্মে থাকা ফাস্ট বোলার তাসকিন আহমেদ। অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিয়ে দ্বিতীয় দিনেই ইনজুরিতে পড়েন এই ডানহাতি পেসার। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে রাখা হয়েছে তাকে। ফিল্ডিং করলে হাতের ঐ জায়গায় আবার ইনজুরির ঝুঁকি বেড়ে যাবে বিধায় শুধু বোলিংই করবেন তাসকিন।

আজ সকালে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। সবশেষ খবর হলো, নিজেদের মধ্যকার দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে খেলছেন তাসকিন। তবে তিনি এখন ফিল্ডিং করতে পারবেন না। ইনজুরি বিষয়ক সতর্কতার কারণে শুধু নিজের কোটার বোলিংটা শেষ করবেন তিনি।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল শুধু চামড়া ছিলে গেছে খানিকটা। কিন্তু পরে তার হাতের ঐ জায়গায় দিতে হয়েছে তিনটি সেলাই। যে কারণে বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেএসপিতে হওয়া প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনি। নান্নু বলেন, তাসকিন আজকে খেলছে এবং বোলিং করবে শুধু, ফিল্ডিং করবে না। তাসকিন ভালো বোলিং করলেন কিন্তু ফিল্ডিং একদমই করতে পারবেন না।

তাহলে কী হবে? মূল স্কোয়াডে রাখার ব্যাপারে তখন সিদ্ধান্ত কেমন হবে? নান্নুর কথা, এসব ক্ষেত্রে পুরোপুরি সুস্থ হতে ১০ থেকে ১৪ দিনের মতো লাগে। আগামী ২০ তারিখ ওর ইনজুরির দশ দিন পুরো হয়ে যাবে। কাজেই আমরা দেখব কী অবস্থা দাঁড়ায়। এরপর ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রধান নির্বাচকের শঙ্কার জায়গা একটাই, সাধারণত এ ধরনের জায়গায় ছোট্ট ঘা হলেও ভেতরে কাঁচা থাকে। তাই ১৪ দিনের মধ্যে ঐ জায়গায় নতুন করে বলের আঘাত লাগলে ফেটে যেতে পারে। তখন আবার দীর্ঘমেয়াদি ইনজুরি দেখা দিতে পারে। তাই সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে সবকিছু বিবেচনা করা হবেই জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক।

এখন দেখার বিষয় হলো, গত ১১ জানুয়ারি ব্যথা পেয়েছেন তাসকিন। যদি ১৪ দিন সময় লাগে তাহলে পুরোপুরি সুস্থ হতে হতে শেষ হয়ে যাবে ওয়ানডে সিরিজ। যেখানে খেলা হবে না তাসকিনের। তবে দশদিনের মধ্যেই সুস্থ হতে পারলে অন্তত শেষের দুই ম্যাচে পাওয়া যাবে তাকে। সেই বিবেচনায় হয়তো ওয়ানডের চূড়ান্ত স্কোয়াডে রাখা হবে তাসকিনকে।

আরও পড়ুন
Loading...