ঢাকায় এবার বোতল ডাস্টবিন

রাজধানীতে রাস্তা ও ফুটপাতসহ যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলছেন মানুষ। বৃষ্টি হলেই যত্রযত্রে পড়ে থাকা ময়লা-আবর্জনা গিয়ে পড়ছে ড্রেনে। এতে বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। যার ফলে একটানা কয়েক ঘণ্টা বৃষ্টি হলে দেখা দেয় জলাবদ্ধতা। এই জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও যত্রতত্রে ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ থেকে নগরবাসীকে রেহাই দিতে রাজধানীর শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বোতলের ডাস্টবিন বসানো হয়েছে। মানুষ উৎসাহ নিয়ে বোতলের ডাস্টবিনগুলো ব্যবহার করছেন।

শুক্রবার (২৫ জুন) সরেজিমনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় লোহা দিয়ে তৈরি বোতল আকৃতি ডাস্টবিন বসানো হয়েছে। এসব ডাস্টবিনে পানির বোতল, কোমল পানীয় বোতল, চায়ের কাপ ও বিভিন্ন ময়লা-আবর্জনা আগ্রহ নিয়ে ফেলছেন। লোহা দিয়ে তৈরি করা বোতলের ডাস্টবিন কেউ যাতে সরিয়ে ফেলতে না পারে, সেজন্য শিকল দিয়ে লোহার খুঁটির সঙ্গে তালা দিয়ে আটকানো হয়েছে। এই অভিনব ডাস্টবিনের ভেতরে ময়লা-আবর্জনা ভরাট হলে দূর থেকেও দেখতে পাওয়া যায়। প্লাস্টিকের বোতল, চায়ের কাপ, ফেলার জন্য বোতল আকৃতির চমৎকার এই ডাস্টবিন দৃষ্টি আকর্ষণ করবে যে কারো।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশেই ফুটপাতের উপরে বসানো বোতল ডাস্টবিনে কোমল পানীয়র বোতল ফেলছেন আশরাফুজ্জামান খোকন। তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন এর আগে যেসব ডাস্টবিন ফুটপাতে বসিয়েছে তা সীমিত ময়লা-আবর্জনা দিয়ে ভর হয়ে যেত। এখন বোতল আকৃতি যে ডাস্টবিন বসানো হয়েছে সেখানে মানুষ আগ্রহ নিয়ে ময়লা-আবর্জনা ফেলছেন। এই ডাস্টবিন দেখতেও সুন্দর লাগছে। দূরে থেকে যেকেউ ডাস্টবিন দেখতে পাবেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খাদিজা আক্তার লিনা বলেন, ঢাকায় কিছুদিন আগে সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে অনেকগুলো সুদৃশ্য ডাস্টবিন রাস্তার ধারে ধারে স্থাপন করা হয়েছিল। সেসব তেমন একটা এখন চোখে পড়ে না। তবে বোতলের মতো ডাস্টবিন টিএসসিতে চোখে পড়ল। এমন ডাস্টবিন দেখলে স্বাভাবিকভাবেই ময়লা-আবর্জনা বাইরে ফেলতে ইচ্ছে করবে না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড গড়তে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান আসাদ নিজ উদ্যোগে বোতল ডাস্টবিন বসিয়েছেন। এই উদ্যোগে যত্রতত্র ময়লা না ফেলার বিষয়ে নগরবাসী সচেতন হবেন।

রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে ময়লা-আবর্জনা ফেলার যেসব ডাস্টবিন দেখা যায় এরচেয়ে ব্যতিক্রমী ডাস্টবিনের উদ্যোগের বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, বৃষ্টির মৌসুমে বোতল ও প্লাস্টিক বর্জ্যে ড্রেন বন্ধ হয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। যেখানে-সেখানে প্লাস্টিক বর্জ্য ফেলা থেকে নগরবাসীকে বিরত রাখতে বোতল আকৃতির ডাস্টবিন বসানো হয়েছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে তিনটি ডাস্টবিন বসানো হয়েছে। ডাস্টবিন দুটি মানুষের দৃষ্টি আকৃষ্ট করতে পেরেছে। আরও আটটি বোতল ডাস্টবিন বসানো হবে। প্রতিটি বোতলে ২০ হাজার টাকা খরচ।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর বলেন, শহীদ মিনার ও টিএসসি এলাকায় তিনটি বোতল বসানো হয়েছে। এরপর ভিসি চত্বর, বাংলামোটর, পরীবাগ, শাহবাগ, কার্জন হল এলাকায় পাঁচটি বোতল বসানো হবে। এই পাঁচটির মধ্যে একটি বোতল ডাস্টবিনের নিচে থাকবে চাকা, যেটি প্রতিদিন টিএসসি হয়ে শাহবাগ, নীলক্ষেত, কাঁটাবন মোড়সহ পুরো দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডে দুজন লোক নিয়ে ঘুরবে। এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে যেন কেউ প্লাস্টিকের বর্জ্য ড্রেনে বা যত্রতত্র না ফেলে।

ঢাকা ব্যতিক্রমী ডাস্টবিনের বিষয়ে পথচারী থেকে শুরু করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও দোকানদাররা প্রশংসা করেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.