টিকা ছাড়া চলাফেরায় শাস্তির সিদ্ধান্ত পর্যায়ক্রমে হবে: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে আগামী ১১ আগস্ট থেকে টিকা নেয়া ছাড়া ১৮ বছরের ঊর্ধ্বের কোনো ব্যক্তি বাইরে চলাফেরার ক্ষেত্রে শাস্তির মুখে পড়বেন বলে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল, তা প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বুধবার গণমাধ্যমে এ তথ্য জানিয়ে তিনি বলেন, সিদ্ধান্তটি প্রত্যাহার করা হয়েছে। বক্তব্যটি সংশোধন করা হয়েছে। এটা তো সম্ভব নয়। এটা পর্যায়ক্রমে হবে। ওই পর্যায়ে আমরা ভবিষ্যতে যাব। আরো টিকা দেয়ার ব্যবস্থা করে এ সিদ্ধান্ত আমরা নেব। আমরা আরো সময় নেব।

মন্ত্রী বলেন, টিকা ছাড়া চলাচলের ক্ষেত্রে কবে থেকে শাস্তি আরোপ করা হবে, সেই তারিখ আমরা পরে জানাব। যখন সবাইকে টিকা দেয়ার সক্ষমতা অর্জিত হবে, সেটা নিশ্চিত হওয়ার পরই এটা করা হবে।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ভ্যাকসিন ছাড়া ১৮ বছরের বেশি বয়সের কোনো মানুষ মুভমেন্ট করলে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হবে। সরকার দরকার হলে অধ্যাদেশ জারি করেও শাস্তি দেওয়া হতে পারে। যেহেতু এখন সংসদ অধিবেশন নেই, তাই অধ্যাদেশ জারি করা হতে পারে।

তিনি আরো বলেছিলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ৭ দিনে ১ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে। সুতরাং টিকা ছাড়া ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ রাস্তায় বের হলে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

মন্ত্রীর ওই বক্তব্যের পর দেশব্যাপী আলোচনা ও সমালোচনা শুরু হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি স্পষ্ট ব্যাখ্যা দিয়ে বিজ্ঞপ্তিও পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.