টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন মোদি

করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেসে (এআইআইএমএস) তিনি টিকা নেন বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। ওই সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী সক্ষম সবাইকে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। পয়লা মার্চ ষাটোর্ধ্ব এবং করোনা বাদে অন্য রোগ থাকা ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের টিকাদান শুরু করে ভারত। ওই দিন টিকা নিয়েছিলেন মোদি।

দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার পর একটি ছবি টুইট করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এর ক্যাপশনে তিনি লেখেন, করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ে জেতার অল্প কয়েকটি পন্থার একটি হলো টিকা নেয়া। এবার টিকা নেয়ার সময় মোদির মুখে ছিল মাস্ক। ‘এআইআইএমএসে বৃহস্পতিবার কোভিড-১৯-এর টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলাম। ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অল্প কয়েকটি পন্থার একটি হলো টিকা নেয়া। টিকা নিতে সক্ষম হলে দ্রুত নিয়ে নিন’, টুইটে লেখেন মোদি।

ওই টুইটের সঙ্গে ভারতে টিকা নিতে ইচ্ছুকদের নিবন্ধনের ওয়েবসাইট কোউইনের একটি লিংক সংযুক্ত করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। জানা গেছে, ভারত বায়োটেক ও ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) উৎপাদিত টিকা কোভ্যাক্সিন নিয়েছেন মোদি। প্রধানমন্ত্রীকে টিকাদানে নিয়োজিত ছিলেন দুইজন নার্স। প্রথম ডোজটি দিয়েছিলেন পি নিবেদা। দ্বিতীয় ডোজ দেন নিশা শর্মা।

ছবিতে দেখা যায়, দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার সময় মোদির বাহু ধরে আছেন নিবেদা। ভারতে ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া টিকাদান কর্মসূচিতে পুনেভিত্তিক সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন দেয়া হচ্ছে।

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ধীরে ধীরে টিকার আওতা বাড়াচ্ছে ভারত। দেশটি শুরুতে সম্মুখসারির কর্মী ও স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেয়। পরবর্তী সময়ে ষাটোর্ধ্ব ও ৪৫ বছর বয়সীদের জন্য টিকা নেয়ার সুযোগ দেয়া হয়। এখন পর্যন্ত দেশটিতে টিকা নিয়েছেন ৯ কোটির বেশি মানুষ।

আরও পড়ুন
Loading...