টানা বৃষ্টিতে নদ-নদীর পানি বাড়ছে

টানা বৃষ্টিতে ও উজানের পানিতে দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোর নদ-নদীতে পানি বাড়তে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে তলিয়ে গেছে নদী তীরবর্তী অনেক গ্রাম। ভারতের বিভিন্ন অংশে ভারি বৃষ্টিপাত হওয়ায় চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহের দিকে ধরলা ও ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকায় স্বল্পমেয়াদী বন্যার আশংকা করছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।

আকাশে মেঘের ঘনঘটা দেখলেই নদীতীরবর্তী মানুষের কপালে পড়ে চিন্তার ভাজ। সেই সাথে বাড়তি দুর্ভোগ নিয়ে প্রতিবছর আসে বন্যা। নদীর দুই কূল ছাপিয়ে গ্রামের পর গ্রাম প্লাবিত হয়। সহায় সম্বল হারা হয় হাজার হাজার পরিবার। চলতি বছর ভারি বৃষ্টিপাতের সাথে বন্যা শুরু হয়েছে দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা গুলোতে।

ভারি বর্ষণে কুড়িগ্রামের তিস্তা, ধরলা ও ব্রহ্মপুত্র নদের পানি গত দু’দিন যাবত বাড়তে শুরু করেছে। ফলে জেলার নদ-নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের অনেক জায়গায় তলিয়ে গেছে। ভারতের বিভিন্ন অংশে ভারি বৃষ্টিপাত হওয়ায় জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহের দিকে ধরলা ও ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকায় স্বল্পমেয়াদী বন্যার আশংকা করছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।

এদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় তিস্তা নদীর পানি কাউনিয়া পয়েন্টে কিছুটা কমলেও ধরলা নদীর পানি সেতু পয়েন্টে বেড়ে বিপদসীমার মাত্র ১৫সে.মি নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও ব্রহ্মপুত্র নদের সব ক’টি পয়েন্টে পানি বাড়তে শুরু করেছে। বন্যার আশঙ্কায় নদ-নদী তীরের মানুষ নানা প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন।

ভারি বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে তিস্তায় পানি বেড়েছে। এখন পর্যন্ত পানি বিপদসীমার ১৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে চরাঞ্চলে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি দেখা দিয়েছে ভয়াবহ ভাঙন। পানিতে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন ফসলের খেত।

এদিকে, আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সারাদেশে এই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। যা আগামী দুই-একদিনের মধ্যে কমতে পারে। গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রাম বিভাগে সবচেয়ে বেশি ২১৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.