উন্নয়ন দেখতে বাংলাদেশ আসতে চান বেলজিয়ামের রাজা

বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন দেখার জন্য ঢাকা সফরের বিষয়টি বিবেচনা করবেন বলে জানিয়েছেন বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ। সেদেশে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মাহবুব হাসান সালেহ্ বুধবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে রাজা ফিলিপের কাছে নিজের পরিচয়পত্র পেশকালে তিনি এ আগ্রহ ব্যক্ত করেন। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রদূত মাহবুব হাসান সালেহ্ বেলজিয়ামের রাজার কাছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। এসময় রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘রাজদম্পতি তাদের সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফর করলে বাংলাদেশ সরকার এবং জনগণ অত্যন্ত আনন্দিত হবে।’ রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, ‘২০২১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনকালে রাজদম্পতির সফর বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ হবে এবং দুই বন্ধু প্রতিম দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করবে।’

দূতাবাস থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বেলজিয়ামের রাজা রাষ্ট্রদূতের কাছে দারিদ্র্য দূরীকরণ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, অবকাঠামোগত অগ্রগতিসহ বাংলাদেশের অন্যান্য উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের বিষয়ে আগ্রহ সহকারে শোনেন। রাজা ফিলিপ ১৯৯০ এর দশকের শুরুর দিকে বাংলাদেশে তার ব্যক্তিগত সফরের বিষয়টি স্মরণ করেন।

রাজা ফিলিপ বাংলাদেশ এবং বেলজিয়ামের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন। রাষ্ট্রদূত এ সময় দুই দেশের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বাণিজ্যিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বিদ্যমান আকর্ষণীয় সুযোগ-সুবিধার বিষয়ে আলোকপাত করেন। বাংলাদেশের কয়েকটি সম্ভাবনাময় খাত যেমন- ওষুধ শিল্প, তথ্য-প্রযুক্তি ও প্রকৌশল শিল্পে বেলজিয়ামের বিনিয়োগকারীদের সম্ভাব্য বিনিয়োগের কথা তুলে ধরে বিনিয়োগ বৃদ্ধির আহ্বান জানান।

রাষ্ট্রদূত সালেহ রাজা ফিলিপকে রোহিঙ্গা সংকট সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে অবহিত করেন। ২০১৯-২০ সালে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য হিসেবে এ বিষয়ে বেলজিয়ামের সহযোগিতামূলক ভূমিকার প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ দূতাবাসের মিশন উপ-প্রধান ফাইয়াজ মুরশিদ কাজী ও প্রথম সচিব ফখরুদ্দিন আহামেদ রাষ্ট্রদূতের পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
Loading...