ই-কর্মাসের ডেলিভারি ম্যান থেকে বিশ্বমঞ্চে

অক্টোবরেই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছে ক্রিস গ্রিভসের। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে বিশ্বকাপ শুরুর আগে প্রস্তুতি ম্যাচে স্কটিশদের জার্সিতে মাঠে নামেন। বল হাতে নজরকাড়া পারফরম্যান্স করেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের নায়ক তিনি। চমৎকার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের সুবাদে হয়েছেন ম্যাচ সেরা। চারটি চার ও দুই ছক্কায় ২৮ বলে ৪৫ রান তুলেছেন। আবার বল হাতে সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমকে ফিরিয়েছেন এই লেগ স্পিনার।

ম্যাচের পর গ্রিভসের এমন পারফরম্যান্সে একেবারেই অবাক নন অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার। অধিনায়ক জানালেন, গ্রিভসের প্রতি দলের সবার আস্থা ছিল। বাংলাদেশের বোলারদের বিপক্ষে যে সব শটস খেলেছেন গ্রিভস সেটারও প্রশংসা করেছেন কোয়েটজার।

স্কটিশ অধিনায়ক বলেছেন, কয়েকদিন আগেও গ্রিভস ই-কর্মাস ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনের ডেলিভারি-ম্যানের কাজ করতেন। কিন্তু সেই কাজ ছেড়়ে ক্রিকেটকেই বেছে নেন। কয়েক মাস আগে স্কটল্যান্ড যখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করে তখনও গ্রিভস সম্পর্কে অনেকেরই ধারণা ছিল না।

কোয়েটজারের ভাষায়, ‘গ্রিভসকে নিয়ে আমি সত্যিই গর্বিত। তিনি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছে। খুব বেশিদিন আগের কথা নয় সে অ্যামাজনের পার্সেল বিতরণ করত। এখন সে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হয়েছে।’

স্কটল্যান্ডের চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের তালিকায় নেই গ্রিভসের নাম। কঠোর পরিশ্রম করে দলে জায়গা করে নিয়েছেন। অ্যাসোসিয়েট ক্রিকেটাররা যেখানে নিজেদের দক্ষতা মেলে ধরার মঞ্চ খোঁজেন, গ্রিভস তেমনই মঞ্চ পেয়ে তার সদ্ব্যবহার করলেন বিশ্বকাপে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.