আজ উভয়মুখী যাত্রীর চাপ শিমুলিয়া ঘাটে

ঈদের দ্বিতীয় দিনে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে শিমুলিয়া ঘাটে বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) সকাল থেকে যাত্রী চাপ রয়েছে। শিমুলিয়া ঘাট দিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গ হতে বাংলাবাজার ঘাট দিয়ে ঢাকাগামী যাত্রী চাপও রয়েছে। অন্যদিকে যারা ঈদের আগে বাড়ি ফিরতে পারেনি, সামনের টানা ১৪ দিনের লকডাউনের সুযোগে তারাও গ্রামে ফিরছে। শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক যানবাহন।

প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ করতে নড়াইল যান তুষার। আবার ঢাকায় ফিরতে এসেছেন ঘাটে। তিনি বলেন, দুই দিন আগে ঈদ করতে বাড়ি গিয়েছিলাম। কাজ থাকায় আবার ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে। অনেক দিন পর গিয়ে দুই দিনেই ফিরে আসা খুব কষ্টের। লকডাউন ঘোষণা না হলে আরও কয়েক দিন থেকে আসতাম। ঈদের আনন্দ থাকলেও কিছুটা খারাপও লাগছে।

খুলনার মো. আরিফ ঢাকাতেই ঈদ করেছেন। তবে ১৪ দিনের ফের লকডাউন ঘোষণা করায় এই সময়টা গ্রামের বাড়িতে কাটাবেন বলে রওনা হয়েছেন বাড়ির উদ্দেশে। তবে দুই সপ্তাহ পর কর্মস্থল ঢাকায় ফিরতে পারবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে তার মনে।

মো. মাসুদ নামের এক ব্যক্তি ঢাকাতেই ঈদ করেছেন। তবে দুই সপ্তাহের বিধিনিষেধের সময় গ্রামের বাড়িতে কাটাবেন বলে বৃহস্পতিবার ভোরেই রওনা হয়েছেন খুলনার উদ্দেশে। তবে তিনি আদৌ দুই সপ্তাহ পর ফিরতে পারবেন কিনা সেটি নিয়েও সংশয় রয়েছে তার মনে।

এ বিষয়ে বিআইডাব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ মাহাবুবুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, সকাল থেকে এ নৌরুটে ১৪টি ফেরি চলাচল করছে। সকাল থেকে যাত্রীর পাশাপাশি বেড়েছে যানবাহনের চাপ।

আগামীকাল ২৩ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে সবচেয়ে কঠোর লকডাউন। যা চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত। এই ইস্যুতে কোনো গুজবে না দেওয়ার আহ্বান জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

Leave A Reply

Your email address will not be published.