আগের রূপে ফিরেছে রাজধানী

আসন্ন কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে কঠোর লকডাউন শিথিল করায় রাজধানীর সড়ক আবারো আগের রূপে ফিরেছে। বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই রাজধানীতে সব ধরনের গণপরিবহন চলাচলের পাশাপাশি মানুষের কর্মচাঞ্চল্য লক্ষ্য করা গেছে।

এদিন সকালে রাজধানীর আজমপুর, এয়ারপোর্ট, আসাদগেট, শুক্রাবাদ, কলাবাগান, পান্থপথ রোডসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই সড়কে অফিসগামী মানুষের ভিড়। গন্তব্যে যেতে বাস স্টপেজগুলোতে অপেক্ষা করছেন যাত্রীরা। সকালে সড়কে একসঙ্গে গণপরিবহন, স্টাফবাস ও ব্যক্তিগত গাড়ির চাপ থাকায় সিগন্যালগুলোতে যানজট তৈরি হতে দেখা গেছে।

তবে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আসন ফাঁকা রেখে বাসগুলো চলাচলের কথা থাকলেও অনেক ক্ষেত্রে তা মানা হচ্ছে না। অধিকাংশ বাসই যাত্রার শুরুতে অর্ধেক যাত্রী নিলেও মাঝপথে দাঁড়িয়ে যাত্রী নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সবকিছুর পরও গণপরিবহন চালু হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন অনেকে।

বরাবরের মতো আজো সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলের আধিক্য লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া মোটরসাইকেলেও অনেককে ভাড়ায় যাত্রী পরিবহন করতে দেখা গেছে। অনেক চাকরিজীবী সাইকেল চেপেও অফিসমুখী হতে দেখা গেছে।

বেসরকারি এক প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী জাফর আহমেদ বলেন, যেদিন থেকে ব্যাংক, বিমা ও শেয়ারবাজার খুলেছে, সেদিন থেকেই আমাদের নিয়মিত অফিস করতে হচ্ছে। কিন্তু গণপরিবহন না থাকায় গত কয়েকদিন অফিসে পৌঁছাতে বেশি ভাড়া দিয়ে রিকশার ওপর নির্ভর করতে হয়েছে।

রাকিবুল ইসলাম নামে অপর এক যাত্রী বলেন, মাসের বেতনের অধিকাংশই খরচ হচ্ছে রিকশা ভাড়ায়। এছাড়াও ঈদের পর তো লকডাউন রয়েছেই, তখন তো আবার গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। এতে আবারো ভোগান্তিতে পড়তে হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.