আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে: মেয়র তাপস

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সবসময় জনগণের পাশে ছিল, আছে এবং আগামী দিনেও পাশে থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

শনিবার (১৭ জুলাই) দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৫৫, ৫৬ ও ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডের দরিদ্র ও করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া ২ হাজার ৪০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস এ মন্তব্য করেন।

মেয়র তাপস এবং সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাড. মো. কামরুল ইসলাম এর যৌথ উদ্যোগে কামরাঙ্গীরচরের আলহেরা কমিউনিটি সেন্টার প্রাঙ্গণে এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

অনলাইন প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সংযুক্ত হয়ে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এদেশের অসহায় ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর প্রতি বিশেষমাত্রায় সহানুভূতিশীল। তার নির্দেশে সারাদেশে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দরিদ্র, অসহায় ও কর্মহীন জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়িয়েছেন। জনগণকে করোনার এই সংকটকালে নানাভাবে সহযোগিতা অব্যাহত রাখা হয়েছে। কারণ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এই দেশের মানুষের পাশে থেকে এ দেশের মানুষকে সাথে নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে এগিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর। তাই, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সবসময় এদেশের মানুষের পাশে ছিল, পাশে আছে এবং আগামী দিনেও পাশে থাকবে।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া এবং অসহায় মানুষের সহযোগিতার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করপোরেশনকে বরাদ্দ দিয়েছেন। সেই বরাদ্দের সাথে যুক্ত হয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. মো. কামরুল ইসলাম। ফলে সহযোগিতার কলেবর আরও বিস্তৃত হয়েছে।”

সাবেক মন্ত্রী অ্যাড. মো. কামরুল ইসলাম অনলাইন প্লাটফর্মে অংশগ্রহণ করে তিনি বলেন, করোনা মহামারির বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমি দীর্ঘদিন ধরে কামরাঙ্গীরচরের অসহায় লোকজনের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণসহ বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। আমার এই এলাকার জনগণকে সহযোগিতার লক্ষ্যে করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এগিয়ে আসায় আমিও তাঁর সাথে সংযুক্ত হলাম। আমাদের এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।”

খাদ্য সামগ্রী হিসেবে প্রতিটি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল, ১কেজি তেল, ১ কেজি আলু ও আধা কেজি মশুরের ডাল বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ৫৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. নুরে আলম, ৫৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন, ৫৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সাইদুল ইসলাম, সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর শেফালী আক্তার, কামরাঙ্গীরচর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম সরকার এবং ৫৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আব্দুর রশীদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.