আইপিএলের বাকি অংশে অনিশ্চিত ইংলিশ তারকারা

করোনার প্রকোপে মাঝপথে স্থগিত হয়ে গেছে আইপিএলের ১৪তম আসর। নতুন করে কবে শুরু হবে বা কোথায় হবে—এ নিয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। তবে বাকি অংশ শুরু হলেও তাতে অনিশ্চিত ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারেরা। এমনটাই জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের পুরুষ দলের ‘ডিরেক্টর অব ক্রিকেট’ অ্যাশলি জাইলস। তাঁর মতে, আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলোতে ইংলিশ ক্রিকেটারদের খেলার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

গত ৪ মে কয়েকজন ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফ আক্রান্ত হলে স্থগিত হয়ে যায় আইপিএল। পরিস্থিতি কিছুটা ভালো হলে ফাঁকা সূচি ফের আয়োজনের চিন্তা ভাবনা বিসিসিআইয়ের। কিন্তু তাতে ইংলিশ ক্রিকেটাররা যোগ দিতে পারবেন কি না সন্দেহ রয়েছে।

কারণ ইংল্যান্ডের সামনে ব্যস্ত সূচি। আগামী মাসে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে ইংলিশরা। এর পরেই খেলবে ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট। এরপর অক্টোবরে বিশ্বকাপ। বছরের শেষ দিকে অ্যাশেজ। সব মিলে ইংলিশদের সূচি ঠাসা।

এই ঠাসার মাঝে যদি সুযোগও থাকে তবুও আইপিএলে ইংলিশদের পাওয়া কঠিন। এ ব্যাপারে সাংবাদমাধ্যমের সামনে জাইলস বলেন, ‘আমরা এখনও জানি না, নতুন করে গুছিয়ে আইপিএল কেমন হবে, কোথায় বা কবে হবে। তবে এই গ্রীষ্মে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ যখন শুরু করব, এরপর আমাদের সূচি অসম্ভব ব্যস্ত। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও অ্যাশেজসহ আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও হাই-প্রোফাইল খেলা আছে। নিজেদের ক্রিকেটারদের দেখভাল ঠিকঠাক করতে হবে আমাদের।’

সাবেক ইংলিশ তারকা আরো বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড সিরিজের প্রেক্ষাপট ছিল অন্যরকম। ওই ম্যাচগুলো ঠিক করা হয়েছিল জানুয়ারির শেষ দিকে, ততদিনে ক্রিকেটারদের পুরো আইপিএল খেলার ব্যাপারে চু্ক্তি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু সামনের সূচি যদি সবগুলো ঠিকঠাক হয়, আমি ছেলেদের সবাইকে পাওয়ার আশা করছি। ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের ইংল্যান্ডের ম্যাচেই খেলানোর পরিকল্পনা আমাদের।’

এদিকে আইপিএল বন্ধ হওয়ার পর ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, করোনার মধ্যে ভারতে হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। তাহলে বিদেশের মাটিতেই হতে পারে পরের ম্যাচগুলো। বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীও জানিয়ে দিলেন ভারতের বাইরেই হবে ১৪তম আইপিএলের বাকি অংশ। তবে কোথায় আয়োজন হবে তা এখনো অনিশ্চিত বলে জানিয়েছেন ভারতে ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলি।

স্পোর্টসস্টার ম্যাগাজিনকে ভারতের সাবেক অধিনায়ক বলেন, ‘আয়োজনে অনেক ঝামেলা আছে যেমন ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন ইত্যাদি। এখন এটা ভারতে সম্ভব না। এই কোয়ারেন্টিন সামলানো খুব কঠিন। আর কীভাবে আইপিএলের জন্য স্লট বের করব এটা এত তাড়াতাড়ি বলতে পারছি না।’

আরও পড়ুন
Loading...