অলিম্পিকে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত করতে আইসিসির আবেদন

অনেকদিন ধরেই অলিম্পিকে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্তির দাবি করে আসছিলেন ভক্তরা। অবশেষে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিড করেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২৮ লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিক থেকেই দেখা যেতে পারে ক্রিকেট।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে আইসিসি। সংস্থাটি জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আজ অলিম্পিক গেমসে ক্রিকেটের অন্তর্ভুক্তির জন্য বিড করার ইচ্ছাকে নিশ্চিত করেছে। আইসিসি এরই মধ্যে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করেছে। সেখান থেকে বিডে নেতৃত্ব দেওয়া হবে। আমাদের ইচ্ছা ২০২৮ লস অ্যাঞ্জেলস, ২০৩২ ব্রিসবেন এবং এরপরের অলিম্পিকগুলোতেও যেন ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হয়।

এ বিষয়ে আইসিসির চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে বলেন, প্রথমে আইসিসির প্রত্যেকের পক্ষ থেকে আমি ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি (আইওসি), টোকিও ২০২০ এবং জাপানের জনগণকে এমন কঠিন পরিস্থিতিতে এমন অবিশ্বাস্য গেমস আয়োজনের জন্য অভিনন্দন জানাতে চাই। এটা সত্যিই উপভোগ্য আসর ছিল। আমরা ভবিষ্যতে ক্রিকেটের মাধ্যমে এই গেমসের একটি অংশ হতে চাই।

তিনি আরো বলেন, আমারা সবাই মিড করার বিষয়ে একমত এবং ক্রিকেটের দীর্ঘমেয়াদী ভবিষ্যতের অংশ হিসেবেই অলিম্পিককে দেখি। বিশ্বব্যাপী আমাদের এক বিলিয়নেরও বেশি ভক্ত আছে। তাদের প্রায় ৯০ শতাংশ অলিম্পিকে ক্রিকেট দেখতে চায়।

বার্কলে যোগ করেন, স্পষ্টতই ক্রিকেটের একটি শক্তিশালী এবং আবেগপ্রবণ ভক্তকূল আছে। বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ায়, যেখানে আমাদের ভক্তদের ৯২ ভাগ থাকেন। এমনকি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ কোটি ক্রিকেট ভক্ত রয়েছে। সেই ভক্তদের জন্য তাদের নায়কদের অলিম্পিক পদকের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দেখা অসাধারণ ব্যাপার হবে।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান ইয়ান ওয়াটমোর আইসিসি অলিম্পিক ওয়ার্কিং গ্রুপের সভাপতিত্ব করবেন এবং তার সঙ্গে যোগ দেবেন আইসিসির স্বতন্ত্র পরিচালক ইন্দ্র নুই, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের চেয়ার তাভেংওয়া মুকুহলানি, আইসিসির সহযোগী সদস্য পরিচালক এবং এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা ভলিপুরম এবং ইউএসএ ক্রিকেট পরাগ মারাঠে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.